প্রধানমন্ত্রী দেখিয়ে দিয়েছেন, বাংলাদেশ পারে

ডেস্ক রিপোর্টঃ জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের সদস্যরা বলেছেন, সব ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে বিশ্ববাসীকে প্রধানমন্ত্রী দেখিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ সব পারে। বীরের জাতি বাঙালিকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারেনি, পারবেও না। পদ্মা সেতু নির্মিত হওয়ায় বিএনপি এখন দিশাহারা। আগামী নির্বাচনে তারা (বিএনপি) কী নিয়ে জনগণের সামনে যাবে?

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে ওই আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও প্যানেল সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম।

আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী, শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, সরকারি দলের মেহের আফরোজ চুমকি, শফিকুর রহমান, সুবর্ণ মুস্তাফা, জোহরা আলাউদ্দিন, নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন, এ কে এম ফজলুল হক, কানিজ ফাতেমা আহমেদ, শফিকুল আজম খান, ওয়ার্কার্স পার্টির ফজলে হোসেন বাদশা, জাতীয় পার্টির পনির উদ্দিন আহমেদ, রওশন আরা মান্নান, বেগম শরিফা কাদের প্রমুখ।
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ফারুখ খান বিএনপিকে নির্বাচনে আসা না আসা নিয়ে মাঠেঘাটে বক্তব্য না দিয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে আলোচনা করার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, বিএনপি নেতারা প্রতিদিন বিভিন্ন সময় মাঠেঘাটে আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না, ইভিএম তাদের সায় নেই ইত্যাদি বলে বেড়াচ্ছে। তারা কী চাচ্ছে, তা নির্বাচন কমিশনকে বিশদভাবে জানালে সেটা কাজে লাগতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ভূয়সী প্রসংসা করে ফারুক খান বলেন, আওয়ামী সরকার একটানা তিন টার্ম ক্ষমতায় থেকে বাজেট প্রণয়ন করছে। এবারে দেশের সর্ববৃহৎ ছয় লাখ ৭০ হাজার কোটির বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে। কেউ কেউ এ বাজেট বাস্তবায়িত হবে না মন্তব্য করলেও পরিসংখ্যানে দেখে বলা যায়, আওয়ামী লীগ সরকারের অধিকাংশই বাজেট ৯০ শতাংশ বাস্তবায়িত হয়েছে। এমনকি কারোনাকালে রেমিট্যান্স ৩৬ শতাংশ বেড়েছে। সারা বিশ্বের অর্থনীতি যখন কভিড অভিঘাতে বিপর্যস্ত তখন বাংলাদেশ সুযোগ্য নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃঢ় মনোবল ও বুদ্ধিবলে দেশের অর্থনীতি স্বাভাবিক ও উত্তোরত্তোর বৃদ্ধি পাচ্ছে। কভিড নিয়ন্ত্রণে বিশ্ব যখন দিশাহারা তখন বাংলাদেশ কভিড নিয়ন্ত্রণে বিশ্বে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে।

সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত ও দক্ষ নেতৃত্বের কারণে সারা বিশ্বে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রশংসিত হচ্ছেন উল্লেখ করে সাবেক মন্ত্রী ফারুক খান বলেন, আওয়ামী লীগ একটানা তিন টার্ম সরকার পরিচালনা করছে। এই সময়ে বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে। পদ্মা সেতু তার সর্বোৎকৃষ্ট উদাহরণ। নানামুখী ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের মাঝে এক অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন।

ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী প্রস্তাবিত বাজেটকে ‘সুন্দর, গ্রহণযোগ্য ও বাস্তবামুখী বাজেট’ আখ্যায়িত করে বলেন, বর্তমানে যে মূল্যস্ফীতি দেখা দিয়েছে সেটা বাংলাদশে সৃষ্ট নয়। করোনা মহামারি এবং রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে। জ্বালানিসহ সব পণ্যের দাম আস্বাভাবিক বেড়ে গেছে। উন্নত দেশগুলোতেও ডবল ডিজিটে চলে গেছে মূল্যস্ফীতি। কিন্তু মূল্যস্ফীতিতে এখনো অনেক বেশ ভালো অবস্থানে রয়েছি। বাংলাদেশে কিছু মানুষ আছে তারা দেশের ভালো দেখতে পারে না, শ্রীলঙ্কার স্বপ্ন দেখে। বাস্তবে তাদের কোনো দেশপ্রেম নেই, দেশের ভালো চায় না। কিন্তু বাংলাদেশ কোনো দিন শ্রীলঙ্কা হবে না। কারণ বাংলাদেশের নেতৃত্ব শেখ হাসিনার হাতে রয়েছে, তাঁর হাতেই দেশ নিরাপদ রয়েছে এবং থাকবে।

প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার প্রস্তাবিত বাজেটকে উন্নয়নবান্ধব বাজেট উল্লেখ করে বলেন, একাত্তরের পরাজিত শত্রুরা দেশের অগ্রগতির চাকাকে স্তব্ধ করে দিতে এখনো নানা ষড়যন্ত্র করছে। নানা মিথ্যাচারের মাধ্যমে দেশে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। কিন্তু তাদের কোনো ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে বাংলাদেশ আজ সারা বিশ্বের সামনে উন্নয়নের রোল মডেল, অর্থনৈতিক উদীয়মান দেশ। এসএমই খাতে বাজেট বরাদ্দ বৃদ্ধির দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ক্ষুদ্র এসব শিল্পে ঋণ দিলে তা শতভাগ আদায় হয়।

ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা হাজারো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘বাংলাদেশের এই সক্ষমতা দেখে গোটা বিশ্ব হতবাক। বর্তমান পরিস্থিতিতে বন্যাকবলিত সিলেট এলাকা পরিদর্শন প্রমাণ করে তিনি কিভাবে দেশের মানুষকে ভালোবাসেন। শুধু সরকারের ওপর ছেড়ে দেওয়া নয়, আমাদের সবাইকে দুর্যোগকবলিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। ‘

জাতীয় পার্টির পনির উদ্দিন আহমেদ সকল বাধা পেরিয়ে দেশের সর্ববৃহৎ বড় প্রকল্প স্বপ্নের পদ্মা সেতু নির্মাণ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণ করে বিশ্ববাসীকে তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন। বাংলাদেশের একজন যোগ্য রাষ্ট্রনায়ক হচ্ছেন শেখ হাসিনা। বন্যায় তিস্তা নদীতে ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। দ্রুত এই ভাঙন রোধ করতে না পারলে এলাকার মানুষ ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতির শিকার হবে।

মুহাম্মদ শফিকুর রহমান বলেন, খালেদা জিয়া বলেছিলেন আওয়ামী লীগ পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে পারবে না। যখন হলো তখন বললেন জোড়াতালি দেওয়া সেতু, কেউ উঠবেন না। কখন কী বলে কোনো ঠিক নেই। আগামী নির্বাচনে তারা (বিএনপি) কী নিয়ে জনগণের সামনে যাবে, একটা উল্লেখ করার মতো কোনো অর্জন তাদের নেই। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিল বলেই বিএনপিরা ’৭৫-এর হাতিয়ারের কথা বলে। তারা আরেকটি ১৫ আগস্ট ঘটানোর হুমকি দিচ্ছে। সবাইকে সজাগ থেকেই এদের যোগ্য জবাব দিতে হবে।

অসীম কুমার উকিল প্রস্তাবিত বাজেটকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লব বাস্তবায়নের বাজেট উল্লেখ করে বলেন, পদ্মা সেতু শুধু একটি সাধারণ সেতু নয়, এটি বাঙালি জাতির সততা, বীরত্ব, সক্ষমতা, মিথ্যাচার-ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়ার সেতু। ষড়যন্ত্র-মিথ্যাচার করে পদ্মা সেতু নির্মাণে বহু বাধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু শেখ হাসিনার দৃঢ়তা, সততা ও দূরদর্শিতার সামনে সব ষড়যন্ত্র ব্যর্থ হয়েছে। শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে উন্নয়ন ও অগ্রগতির এগিয়ে যাচ্ছে, যাবেই।

মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, সারা বিশ্ব বাংলাদেশের উন্নয়ন দেখে বিস্মিত হচ্ছে। একাত্তরের পরাজিত পাকিস্তানও বাংলাদেশের প্রশংসা করে বলছে, বাংলাদেশ গর্বিত যে তারা একজন যোগ্য নেত্রীকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পেয়েছে। নারীদের সম্মান জানাতে বাবার নামের পাশে মায়ের নাম লেখা বাধ্যতামূলক করেছেন। এ জন্য পুরো নারী জাতি বঙ্গবন্ধুকন্যার কাছে কৃতজ্ঞ।

সুবর্ণ মুস্তাফা বাজেটে সংস্কৃতিকে অগ্রাধিকার দেওয়ার দাবি জানিয়ে বলেন, ‘যেকোনো গণতান্ত্রিক সংগ্রামে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গ অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। শত বাধা-বিপত্তি, ষড়যন্ত্র পেরিয়ে পদ্মা সেতু এখন উদ্বোধনের অপেক্ষায়। প্রধানমন্ত্রী শিখিয়েছেন, কিভাবে আলোর মশাল জ্বালিয়ে অন্ধকার দূর করা যায়। বঙ্গবন্ধু হত্যায় জিয়া জড়িত ছিল বলেই আজ ২০২২ সালে এসে বিএনপি নেতারা আরেকটি ’৭৫ ঘটানোর হুমকি দিচ্ছে। কিন্তু বিএনপি ভুলে গেছে এটা ১৯৭৫ সাল নয়, এটি ২০২২ সাল। ’৭৫-এ আমরা শত্রু চিহ্নিত করতে পারিনি; কিন্তু এখন সব শত্রু চিহ্নিত। তাদের কোনো ষড়যন্ত্রই এ দেশের মাটিতে বাস্তবায়িত হবে না। ‘

প্রস্তাবিত বাজেটকে সংকটকালীন বাজেট উল্লেখ করে জাপার রওশন আরা মান্নান বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে সারা বিশ্বে অস্থিরতা বিরাজ করছে। দ্রব্যমূল্যে ভয়াবহভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণে জরুরি পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি আরো বলেন, নিজ অর্থায়নে ভয়ংকর স্রোতস্বীনি পদ্মায় নদীতে ইতিহাসের বৃহৎ পদ্মা সেতু নির্মাণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা বিশ্বকে দেখিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশ পারে। তবে দেশ থেকে বিদেশে টাকা পাচার হচ্ছে, কেউ টাকা নিয়ে ফেরত দিচ্ছে না। এসব কঠোর হস্তে বন্ধ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.